স্বাদে ও ১০০% বিশুদ্ধতায় অনন্য ন্যাচারালস প্রিমিয়াম হানি।

এই শীতে মধু হচ্ছে আপনার শরীরের জন্য শ্রেষ্ঠ খাবার। জান্নাতের যেসব খাবার আল্লাহতায়ালা দুনিয়াবাসীদের জন্য পাঠিয়েছেন তার মধ্যে মধু অন্যতম। মধু আল্লাহর পক্ষ থেকে বিশেষ নেয়ামত। এতে রয়েছে অসংখ্য রোগের শেফা।
আয়ুর্বেদ শাস্ত্র বলুন আর ধর্মগ্রন্থ সব জায়গায় মধুকে দেয়া হয়েছে যথেষ্ট গুরুত্ব। মৌমাছি নিয়ে আল কুরআনে একটি সূরাও নাজিল হয়েছে। যার নাম ‘নাহল’। সূরা মোহাম্মদে মহান আল্লাহ্ জান্নাতের বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেছেন “এর তলদেশে প্রবাহিত হবে মধুর প্রবাহ”

নবী করিম (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেন, ‘যে ব্যক্তি প্রতি মাসে তিন দিন সকালে মধু চেটে খাবে, তার বড় ধরনের কোন রোগ হবে না।’ (ইবনে মাজাহ : ৩৪৪১)

হাজারো গুণে ভরা মধুতে গ্লুকোজ ও ফ্রূকটোজ আছে যা শরীরে শক্তি যোগায়। অনেক প্রয়োজনীয় খাদ্য উপাদানও আছে। যেমন- এনজাইম বা উৎসেচক, খনিজ পদার্থ (যথা পটাশিয়াম, ক্যালশিয়াম, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ) ও প্রোটিন আছে। মধুতে কোনো কোলেস্টেরল নেই। তাই সুস্থ অসুস্থ যে কেউ মধু খেতে পারেন।

মধুর অন্যান্য উপকারিতা সমূহঃ

১। প্রতিদিন সকালে এক চামচ মধু খেলে ঠান্ডা লাগা,কফ,কাশি ইত্যাদি সমস্যা কমে যায়।
২। মন ভালো করতে প্রতিদিন হালকা গরম পানির সাথে মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে খান। সঙ্গে একটু দারুচিনির গুঁড়াও ছিটিয়ে নিতে পারেন।
৩। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে হালকা গরম পানিতে লেবুর রস ও মধু মিশিয়ে খেলে ওজন কমে যায় কিছুদিনের মধ্যেই। এছাড়াও এভাবে প্রতিদিন খেলে লিভার পরিষ্কার থাকে,শরীরের বিষাক্ত উপাদান গুলো বের হয়ে যায় এবং শরীরের মেদ গলে বের হয়ে যায়।
৪। মধুর সাথে দারুচিনির গুঁড়ো মিশিয়ে খেলে তা রক্তনালীর সমস্যা দূর করে এবং রক্তের খারাপ কোলেস্টেরলের পরিমাণ ১০% পর্যন্ত কমিয়ে দেয়।
৫। মধু ও দারুচিনির মিশ্রণ নিয়মিত খেলে হার্ট অ্যাটাকের ঝুকি কমে এবং যারা ইতিমধ্যেই একবার হার্ট অ্যাটাক করেছেন তাদের দ্বিতীয়বার অ্যাটাকের ঝুকি কমে যায়।
৬। হজমের সমস্যা থাকলে প্রতিদিন সকালে মধু খাওয়ার অভ্যাস করুন। প্রতিবার ভারী খাবারের আগে এক চামচ মধু খেয়ে নিন। বিশেষ করে সকালে খালি পেটে এক চামচ মধু খান।
৭। যারা সারাক্ষন দূর্বলতায় ভুগছেন তারা প্রতিদিন সকালে এক চামচ মধু খেয়ে নিন এবং সারা দিন সবল থাকুন।
৮। সকালে ত্বকে মধু লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এতে মধুর বেশ কিছু উপাদান ত্বক শুষে নেয়। ফলে ত্বক মসৃণ ও সুন্দর হয়।ত্বকে নিয়মিত মধু ব্যবহার করলে ত্বকের দাগও চলে যায়।
৯। অল্প গরম দুধের সঙ্গে মধু বেশ কার্যকরী। সকালের নাস্তার সাথে প্রতিদিন ১/২ চামচ মধু পান করা উত্তম। শরীরে তাৎক্ষণিক শক্তি যোগায় মধু।
১০। মধু রোগ প্রতিরোধ শক্তি বৃদ্ধি করে, হার্টকে শক্তিশালী করে, কোষ্ঠকাঠিন্য ও অনিদ্রা দূর করে, শারীরিক দূর্বলতা দূর করে এবং পাকস্থলী সুস্থ রাখে। এছাড়া কফ, সর্দি, কাশি, পানিবাহিত রোগ ডায়রিয়া সহ পেটের যে কোন সমস্যায় মধু চমৎকার কাজ দেয়।

সব ধরনের মধু কি স্বাস্থ্যের জন্য ভাল?

অবশ্যই নয়। বাজারে ভেজাল ও কেমিক্যাল মিশ্রিত যে মধু পাওয়া যায় তা স্বাস্থের জন্য ঝুঁকিপূর্ন। আবার মৌচাক থেকে সরাসরি সংগ্রহ করা খাঁটি মধুতেও থাকে জীবাণু, পোকামাকড় সহ মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকি। আমরা সরবরাহ করি স্বয়ংক্রিয় প্রসেস প্লান্ট থেকে প্রসেসিং করা ন্যাচারালস প্রিমিয়াম হানি।

ন্যাচারালস হানি শতভাগ বিশুদ্ধ ও নিরাপদ।

3.3/5 (8 Reviews)
ওজন

২৫০ গ্রাম, ৫০০ গ্রাম

Customer reviews
0
0 ratings
5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%
Reviews

There are no reviews yet.

Write a customer review

Be the first to review “সরিষা ফুলের মধু (Premium Mustard Honey) 500gm”

All products

TOP

X